মঙ্গলবার, ১৫ Jun ২০২১, ০৩:১৫ পূর্বাহ্ন১লা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

৪ঠা জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

নোটিশঃ
★সিলেটের বার্তায় প্রতিনিধি/সংবাদদাতা নিয়োগ চলছে। তাই যোগাযোগ করুন নিম্নের মেইল অথবা নাম্বারে।
অন্ধকারে বন্দী সিসিকের ২৭নং ওয়ার্ড: বাড়ছে ছিনতাই

অন্ধকারে বন্দী সিসিকের ২৭নং ওয়ার্ড: বাড়ছে ছিনতাই

নিজামুল হক লিটন:: ২৭নং ওয়ার্ড সিলেট সিটি করপোরেশনের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি ওয়ার্ড। সিলেট-জকিগজ সড়ক এপাশ-ওপাশ ঘেষে বহমান এই ওয়ার্ডের সড়কে দিনে জ্বলে বাতি রাতে অন্ধত্বে পরিণত হয় গোটা এলাকা। সিসিকের দায়সারা কর্মকান্ডে দিন দিন বাড়ছে দুর্ঘটনা, চুরি-ছিনতাইসহ নান অপকর্ম।

এই ওয়ার্ডের মধ্যেই বিভাগীয় কমিশনার, পাসপোর্ট অফিস, কারিগরী প্রতিষ্ঠান, বিসিক শিল্প নগরীসহ জনগুরুত্বপূর্ণ সরকারি-বেসরকারি অফিস বিদ্যমান থাকা সত্ত্বেও প্রধান সড়কের উপর বৈদ্যুতিক খুঁটি চালু থাকার পরও নজর নেই কর্তৃপক্ষের।

সিলেট জকিগঞ্জ লাইনের মেইন রোডের আইল্যান্ডের উপর যে খুটির লাইট জ্বলে না দীর্ঘ ৫/৬ মাস থেকে। অন্ধকারে বন্দী সাধারণ মানুষ। রাস্তার দিয়ে চলাচল করতে হয় অতি সাবধানে।

অন্ধকারকে পুঁজি করে ছিনতাইাকারীরা বেপরোয়া হয়ে উঠছে এই সড়কে। ঘটছে নানা দুর্ঘটনা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত ২৬, জানুয়ারী রাত ৯টার দিকে সিলেট নগরীর শাহজালাল উপশহর থেকে বিয়ানীবাজা যাওয়ার পথে সুন্দরবন কমিউনিটি সেন্টার এর সামনে অন্ধকারে সিএনজি অটোরিকশা যাত্রীদের আটকিয়ে ছিনতাইকারী ছিনিয়ে নিয়ে যায় টাকা পয়সা সোনা মোবাইল সহ প্রায় চার লাখ ২২ হাজার টাকার মালামাল।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, হবিনন্দী এলাকা থেকে শুরু করে আলমপুর পুলিশ ফাঁড়ি পর্যন্ত ২০টি বৈদ্যুতিক খুঁটিতে ২টি করে ৮৫ওয়াটের বাতি জ্বলার কথা থাকলেও জ্বলছে কোন বাতি।

সিসিক সূত্রে জানা যায়, প্রতি খুঁটিতে ৬ওয়াটের বাতি রয়েছে। আবার এই সিসিকের অন্য সূত্র বলছে ৮৫ওয়াটের কথা। ১৬০ওয়াটের কথাও শুনা গেছে।

এ ব্যাপারে সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাহী প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ) রুহুল আমিন সিলেটের বার্তাকে বলেন, এনার্জি বাল্বের টেন্ডার হওয়ার কথা ছিল, এখনো হয়নি। তাই বেশিরভাগই খুঁটির বাতি জ্বালানে সম্ভব হচ্ছে না

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মাঝে মধ্যে দু’ চারটা বাতি জ্বলে। আমাদের কিছু করার নেই।

এ ব্যাপারে স্থানীয় কাউন্সিলর আজম খাঁনের মুঠোফোনে কল দিলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।

তবে সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর ফোনে কল দিলে লিমন আহমদ নামের এক কর্মকর্তা ফোন রিসিভ করে সিলেটের বার্তার এই প্রতিবেদকে বলেন, স্যার, ডাইরিয়ায় আক্রান্ত হয়ে বাসায় আছেন। কথা বলতে পারবেন না।

এদিকে গাড়ি চালক ও পথচারীরা জানান রাতে এই রাস্তায় অনেক যাত্রী ছিনতাইয়ের শিকার হচ্ছেন। এরপরও কেউ কথা বলতে রাজি না।

শেয়ার করুন
  •  
  • 170
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





Sylheter#Barta@777

©এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব sylheterbarta24.com কর্তৃক সংরক্ষিত