মঙ্গলবার, ১৫ Jun ২০২১, ০৩:০৯ পূর্বাহ্ন১লা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

৪ঠা জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

নোটিশঃ
★সিলেটের বার্তায় প্রতিনিধি/সংবাদদাতা নিয়োগ চলছে। তাই যোগাযোগ করুন নিম্নের মেইল অথবা নাম্বারে।
এসব হাসপাতাল দিয়ে কী হবে: সিলেটের ঘটনায় ক্ষুব্ধ পররাষ্ট্রমন্ত্রী

এসব হাসপাতাল দিয়ে কী হবে: সিলেটের ঘটনায় ক্ষুব্ধ পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সিলেটের বার্তা ডেস্ক:: ‘অন্য যে কোনো সময় রোগী নিয়ে বাণিজ্য করা হয়, আর এই দুঃসময়ে পাশে না দাঁড়ালে, সেবা প্রদান না করলে এসব হাসপাতাল দিয়ে কী হবে।

সিলেটে হাসপাতাল থেকে হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসা না পেয়ে রোগী মারা যাওয়ার ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও সিলেট-১ আসনের সংসদ সদস্য ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

এ বিষয়ে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে তিনি সিলেটের বিভাগীয় কমিশনারের সাথে কথা বলেছেন। একইসাথে সিলেটের জেলা প্রশাসককে ইমেইলও প্রেরণ করেছেন মন্ত্রী।

আজ শুক্রবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

তিনি বলেন, ‘বিনাচিকিৎসায় কেউ মারা যাবেন, এটা চরম অমানবিক, খুবই দুঃখজনক। এগুলো মেনে নেওয়ার মতো নয়। কেউ অসুস্থ হলে চিকিৎসা পাওয়া তার অধিকার। হাসপাতাল চিকিৎসাসেবা দিতে বাধ্য।’

মন্ত্রী বলেন, ‘অন্য সময় রোগীদের নিয়ে বাণিজ্য করা হয়। আর এখন দুঃসময়ে তাদেরকে চিকিৎসাসেবা দেওয়া হবে না, এটা হতে পারে না। কঠিন সময়ে যদি পাশে না থাকে, তবে আর এসব হাসপাতাল দিয়ে কি হবে।’

ড. মোমেন জানান, সিলেটের ঘটনাগুলো খতিয়ে দেখে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসককে বলা হয়েছে।

জানা গেছে, সিলেটে গত ৫ দিনে অন্তত তিনজন রোগী বিভিন্ন হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসা না পেয়ে মারা গেছেন। গত ৩১ মে সিলেট নগরীর কাজীরবাজার মোগলটুলা এলাকার এক বৃদ্ধা (৬৩) নগরীর ৬টি হাসপাতাল ঘুরেও চিকিৎসাসেবা পাননি। তিনি আলহারামাইন হাসপাতাল, নর্থইস্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, সুবহানীঘাটস্থ মা ও শিশু হাসপাতাল, তালতলাস্থ পার্কভিউ হাসপাতাল, রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসাসেবা না পেয়ে পরে মারা যান।

একইদিন মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের এক নারী (৭০) স্ট্রোক করেন। ওইদিন সন্ধ্যায় তাকে নিয়ে অ্যাম্বুলেন্সযোগে সিলেটে আসেন স্বজনরা। কিন্তু সিলেটে নর্থইস্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, আলহারামাইন হাসপাতাল, ইবনে সিনা হাসপাতাল, মাউন্ট অ্যাডোরা হাসপাতাল, উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও নুরজাহান হাসপাতাল ঘুরেও চিকিৎসাসেবা পাননি তিনি। ওই নারী অ্যাম্বুলেন্সের মধ্যেই মারা যান।

এদিকে, শুক্রবার নগরীর কুমারপাড়ার বাসিন্দা ইকবাল হোসেন খোকন (৫৫) ৪টি হাসপাতাল ঘুরেও চিকিৎসাসেবা পাননি। ওসমানী হাসপাতালে নেওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যে তিনি মারা যান।

একের এক এমন ঘটনার খবর সিলেটভিউসহ দেশের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পর সচেতনমহল ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। ঘটনাগুলো জেনে চরম ক্ষুব্ধ হয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

এ বিষয়ে খতিয়ে দেখে কঠোর ব্যবস্থা নিতে মন্ত্রী সিলেটের বিভাগীয় কমিশনারকে নির্দেশনা দিয়েছেন। ঢাকা থেকে আজ শুক্রবার বিভাগীয় কমিশনারের সাথে কথা বলেন ড. মোমেন। তিনি সিলেটের জেলা প্রশাসককেও ইমেইল প্রেরণ করে একই নির্দেশনা দিয়েছেন।

জানা গেছে, যেসব হাসপাতাল রোগী গেলে ফিরিয়ে দেয় বা চিকিৎসাসেবা প্রদান করে না, তাদের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ ব্যবস্থা হিসেবে লাইসেন্স বাতিল করার প্রয়োজন হলে তা করতে মন্ত্রীর নির্দেশনায় উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়া অভিযুক্ত হাসপাতালগুলোকে বড় অঙ্কের জরিমানা কিংবা বিধি মোতাবেক শাস্তির আওতায় আনতেও মন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন।

মন্ত্রীর ইমেইলের পর ঘটনাগুলোর বিষয়ে কী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে, এমনটা জানতে সিলেটের জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলামকে কল করা হলে তিনি কেটে দেন। পরে এসএমএস পাঠিয়ে (জিজ্ঞাসা থাকলে) প্রয়োজনে তাঁকে এসএমএস করতে বলেন তিনি। শুক্রবার রাত ৯টা ২৮ মিনিটে এসএমএসের মাধ্যমে তাঁকে প্রশ্ন পাঠানো হলেও রাত ১০টা ৪৫ মিনিট পর্যন্ত তাঁর কাছ থেকে কোনো জবাব (রিপ্লাই) পাওয়া যায়নি

শেয়ার করুন
  •  
  • 4.9K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





Sylheter#Barta@777

©এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব sylheterbarta24.com কর্তৃক সংরক্ষিত