সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ১০:০৫ পূর্বাহ্ন২৯শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

২৯শে শাবান, ১৪৪২ হিজরি

নোটিশঃ
★সিলেটের বার্তায় প্রতিনিধি/সংবাদদাতা নিয়োগ চলছে। তাই যোগাযোগ করুন নিম্নের মেইল অথবা নাম্বারে।
করোনা: হাসপাতালে সচেতনতা, সীমান্তে স্বাস্থ্য পরীক্ষা

করোনা: হাসপাতালে সচেতনতা, সীমান্তে স্বাস্থ্য পরীক্ষা

নিজস্ব প্রতিবেদক:: প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সিলেটজুড়ে চলছে নানা কর্মসূচি।

আজ বৃহস্পতিবার সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও শহীদ শামসুদ্দিন হাসপাতালে পৃথক পৃথক সচেতনতা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এছাড়াও সিলেটের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হয়েছে সচেতনতা সভা হয়েছে।

অপরিকে সিলেটের গোয়াইনঘাট সীমান্ত দিয়ে আসা ভারতীয় পর্যটক, গাড়ি চালকদের স্বাস্থ্যসেবা পরীক্ষা করা হচ্ছে।

ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও শহিদ শামসুদ্দিন আহমেদ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের যৌথ উদ্যোগে করোনাভাইরাস এর বর্তমান পরিস্থিতি ও প্রতিরোধে সচেতনতামূলক এ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার (১২ মার্চ) সকালে নগরের শামসুদ্দিন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এ সভার আয়োজন করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইউনুছুর রহমান, উপপরিচালক ডাক্তার হিমাংশু লাল রায়, ওসমানী মেডিকেল কলেজের সহযোগী অধ্যাপক ডা. শিশির বসাক, সহযোগী অধ্যাপক মেডিসিন ডা. শিশির চক্রবর্তী, শহিদ শামসুদ্দিন আহমেদ হাসপাতালের সিনিয়র কনসালট্যান্ট ডা. খালেদ মাহমুদ, আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সুশান্ত কুমার মহাপাত্র ও পুলিশ কর্মকর্তা এডিসি (সিটি এসবি) সাইফুল ইসলাম।

এ সভায় করোনাভাইরাসের বিভিন্ন লক্ষণ, আক্রান্ত রোগীর উপসর্গ, আক্রান্ত হলে করণীয় এবং আক্রান্ত হওয়ার আগেই কী সচেতনতা এগুলো সম্পর্কে আলোচনা করা হয়।

এসময় বক্তারা বলেন, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে কেউ মেডিকেল আসলে আইইডিসিআর-এর বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকগণ পরীক্ষার মাধ্যমে তার শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি আছে কি না তা নিশ্চিত করবেন। ভাইরাস পাওয়া গেলে তাকে আইশোলেসন ওয়ার্ডে রাখা হবে এবং তার নিকট কন্টাককেও আইশোলসনে রাখা হবে।

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসন, সিভিল, সার্জন, জেলা পুলিশ, মহানগর পুলিশ, সিটি করপোরেশনের নেতৃবৃন্দ ও সিলেট নগরীর বিভিন্ন প্রাইভেট হাসপাতালের মালিকসহ বিভিন্ন সরকারী বেসরকারি দপ্তরের কর্মকর্তারা।

গোয়াইনঘাট তামাবিল স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে আসা পাথর ও কয়লাবোঝাই ট্রাকচালকদের স্বাস্থ্যপরীক্ষা শুরু হয়েছে। এর আগে ভারতীয় ট্রাকচালকদের স্বাস্থ্যপরীক্ষা করা না হলেও গতকাল বুধবার থেকে তাদেরকেও স্বাস্থ্যপরীক্ষার আওতায় আসা হয়েছে।

জানা গেছে, ‘হ্যান্ডহেল্ড’ থার্মোমিটারের মাধ্যমে ট্রাকচালকদের স্বাস্থ্যপরীক্ষায় এই স্ক্যানিং কার্যক্রম শুরু হয়েছে গতকাল দুুপুর থেকে। পাশাপাশি সাধারণ যাত্রীদেরও স্বাস্থ্যপরীক্ষা করা হচ্ছে। তামাবিল স্থলবন্দরে স্বাস্থ্যপরীক্ষার জন্য আগে দু’জন নিয়োজিত থাকলেও এখন লোকবল বাড়িয়ে চারজন করা হয়েছে।

এ বিষয়ে গোয়াইনঘাট উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. নাজমুস সাকিব বলেন, প্রতিদিনই ভারত থেকে সিলেটের তামাবিল স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করছে কয়লা ও পাথরবোঝাই ট্রাক।  এসব ট্রাকের চালকরা ভারতের বাসিন্দা।  করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর দেশের অন্যান্য স্থলবন্দরের ন্যায় সিলেটের তামাবিল স্থলবন্দরেও বিদেশফেরত ব্যক্তিদের স্বাস্থ্যপরীক্ষা শুরু হয়।

কিন্তু ট্রাকচালকদের স্বাস্থ্যপরীক্ষা করা হতো না। পরে এ স্থলবন্দরটির মেডিকেল ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়- ভারতীয় ট্রাকচালকদেরও স্বাস্থ্যপরীক্ষা ও স্ক্যানিং শেষে দেশে প্রবেশ করানো হবে।

 

শেয়ার করুন
  •  
  • 92
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





Sylheter#Barta@777

©এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব sylheterbarta24.com কর্তৃক সংরক্ষিত