মঙ্গলবার, ০৯ মার্চ ২০২১, ০৯:৪৪ পূর্বাহ্ন২৪শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

২৪শে রজব, ১৪৪২ হিজরি

নোটিশঃ
★সিলেটের বার্তায় প্রতিনিধি/সংবাদদাতা নিয়োগ চলছে। তাই যোগাযোগ করুন নিম্নের মেইল অথবা নাম্বারে।
কোম্পানীগঞ্জে কাদের মির্জা-বাদল গ্রুপ মুখোমুখি, সাংবাদিকসহ আহত ৫০

কোম্পানীগঞ্জে কাদের মির্জা-বাদল গ্রুপ মুখোমুখি, সাংবাদিকসহ আহত ৫০

কোম্পানীগঞ্জে কাদের মির্জা ও বাদল গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ সাংবাদিকসহ আহত হয়েছেন অর্ধশত।

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

সময় মুহুর্মুহুর গুলির আওয়াজ শোনা যায়। এতে স্থানীয় এক সংবাদকর্মীসহ উভয়পক্ষের কমপক্ষে অর্ধশতাধিক আহতের ঘটনা ঘটেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ লাঠিচার্জ, শটগানের ফাঁকা গুলি ও টিয়ারসেল নিক্ষেপ করেছে।

শুক্রবার বিকাল পৌনে ৫টার দিকে চাপরাশিরহাট পূর্ব বাজারে আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ের সামনে এ রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

আহতরা হচ্ছেন, স্থানীয় সংবাদকর্মী বোরহান উদ্দিন মুজাক্কির, চরফকিরা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান, সাইয়েদুর রহমান, রুহুল আমিন, মেহরাব, বাপ্পী, কামাল পাটোয়ারী, শাওন, শামীম, দেলোয়ার হোসেন, মাস্টার, নসু, কামরুল হাসান, নুরুল অমিত, মাসুদ, কাঞ্চন, রায়হান, দেলোয়ারসহ অর্ধশতাধিক জন। এদের মধ্যে গুলিবিদ্ধ সংবাদকর্মী বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির, নুরুল অমিত, ফরহাদ ও কাঞ্চনকে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল বিকাল সাড়ে ৪টায় তার সমর্থকদের নিয়ে চাপরাশিরহাটে দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে মিছিল করেন। এ সময় পৌর মেয়র কাদের মির্জা সমর্থিত চরফকিরা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিন লিটনের নেতৃত্বে তার সমর্থকরা মুখোমুখি হলে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। একপর্যায়ে উভয়পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটে।

এতে উভয়পক্ষের অন্তত অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হন। সংবাদ সংগ্রহে গিয়ে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন বার্তা বাজার এর প্রতিনিধি বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির।

এদিকে সংঘর্ষের পর নিজের ফেসবুক আইডি থেকে লাইভে এসে নিজের দলের নেতাকর্মীদের ওপর চাপরাশিরহাট বাজারে হামলা হয়েছে বলে দাবি করেছেন মেয়র আবদুল কাদের মির্জা। তার কোনো নেতাকর্মী মারা গেলে তার দায়দায়িত্ব সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিন ও প্রশাসনকে নিতে হবে বলে জানান কাদের মির্জা।

কোম্পানীগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রবিউল হক জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ১০-১২ রাউন্ড টিয়ারসেল নিক্ষেপ করা হয়েছে।

শেয়ার করুন
  •  
  • 23
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





Sylheter#Barta@777

©এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব sylheterbarta24.com কর্তৃক সংরক্ষিত