মঙ্গলবার, ০৪ অগাস্ট ২০২০, ০১:১২ অপরাহ্ন২০শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

১৩ই জিলহজ্জ, ১৪৪১ হিজরী

নোটিশঃ
★করোনাভাইরাস থেকে হেফাজত থাকতে পড়ুন-'লা-ইলাহা ইল্লা আনতা সুবহানাকা, ইন্নি কুনতু মিনায যোয়ালিমীন'।। ★সিলেটের বার্তায় প্রতিনিধি/সংবাদদাতা নিয়োগ চলছে। তাই যোগাযোগ করুন নিম্নের মেইল অথবা নাম্বারে।
চাটাই-চাপাতি নিয়ে ক্রেতাদের অপেক্ষায় তারা

চাটাই-চাপাতি নিয়ে ক্রেতাদের অপেক্ষায় তারা

সিলেটের বার্তা প্রতিবেদক:: চাপাতি, ছুরি, বুজালি, গড়া, টুকড়ি, তেরপাল ইত্যাদি পশু কুরবানীর অনুসঙ্গ এসব জিনিস কেনার ধুম পড়ে যায়। করোনাকালের মাঝে আগমন হওয়া বকরা ঈদে তেমন বেচাকেনা হবে না তবুও ঈদ রাতের অপেক্ষায় রয়েছেন মৌসুমি ব্যবসায়ীরা।

ঈদের বাকি আর মাত্র দু’দিন। পশু জবাইয়ের অন্যতম অনুসঙ্গের পসরা সাজিয়ে বসে আছেন তারা।

সিলেট নগরীর বন্দরবাজার, ক্বীনব্রীজ মোড়, আম্বরখানা, মহাজনপট্রিসহ বিভিন্ন স্থানে দেখা গেছে এসব পণ্যের পসরা নিয়ে বসে আছেন বিক্রেতারা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, চাটাই প্রতিপিস ১৫০ টাকা থেকে ২০০ টাকা, ত্রীপল-১০০-২০০ টাকা, গড়া- (ছোট-বড় ভেদে) প্রতি পিস ২০০ থেকে ২৫০ টাকা দামে বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে টুকড়ি ৫০-১০০ টাকা, ছুরি-১৫০-৩০০ টাকা, রশি বান্ডেল প্রতি-৮০-১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

ক্রেতা সমাগম নেই। তবুও ঈদরাতের অপেক্ষা করছেন উল্লেখ করে রায়নগর সোনারপাড়া এলাকার রিমঝিম কুঠির শিল্পের পরিচালক আহমেদ মানিক বলেন, মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে গতবছরের তুলনায় এবার কুরবানী কম হবে। তবে আমরা ঈদ রাতের অপেক্ষা করছি। আশা করছি ঈদরাতে মোটামুটি একটা বিকিকিনি হবে।

Last Updated on

শেয়ার করুন
  •  
  • 125
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





Sylheter#Barta@777

সিলেটের বার্তা পরিবারঃ

এম. এ কাদির-বালাগঞ্জ প্রতিনিধি

লিটন পাঠান-মাধবপুর প্রতিনিধি

 

©সিলেটের বার্তা ২৪ কর্তৃক সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত।