মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ০৪:২১ অপরাহ্ন৩০শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

৩০শে শাবান, ১৪৪২ হিজরি

নোটিশঃ
★সিলেটের বার্তায় প্রতিনিধি/সংবাদদাতা নিয়োগ চলছে। তাই যোগাযোগ করুন নিম্নের মেইল অথবা নাম্বারে।
চাবাগানে পিকনিক করতে বাঁধা, শ্রমিক-শিক্ষার্থী সংঘর্ষ

চাবাগানে পিকনিক করতে বাঁধা, শ্রমিক-শিক্ষার্থী সংঘর্ষ

লিটন পাঠান, মাধবপুর প্রতিনিধি:: হবিগঞ্জের মাধবপুরে পিকনিক করতে আসা মাদ্রাসা ছাত্র ও শিক্ষকদের সাথে চা শ্রমিকদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

এতে উভয় পক্ষের কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়েছেন।

স্হানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার (২৫ ফেব্রুয়ারী) বিকেল সাড়ে ৪ টার দিকে মৌলভীবাজার থেকে একটি দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের নিয়ে শিক্ষকরা মাধবপুর উপজেলার ঐতিহাসিক তেলিয়াপাড়া স্মৃতিসৌধ এলাকায় পিকনিক করতে আসেন।

এসময় তারা কর্তৃপক্ষের অনুমতি না নিয়েই বাগান এলাকায় প্রবেশ করলে নিরাপত্তা কর্মীরা বাঁধা প্রদান করলে তর্কবিতর্কের এক পর্যায়ে দু’পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

আহত তাপস নায়ক (২০)কে মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করা হয়েছে।

তাপস নায়ক মাধবপুর উপজেলার তেলিয়াপাড়া চা বাগানের অফিস টিলার বিশু নায়কের ছেলে। আহত তাপস নায়ক জানান, মৌলভীবাজার থেকে মাদ্রাসার কয়েকশো ছাত্র শিক্ষক কর্তৃপক্ষের অনুমতি না নিয়েই চা বাগানে প্রবেশ করলে প্রবেশ গেইটের দায়িত্বে থাকা লোকজন বাধা দেয়ে।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মাদ্রাসা ছাত্র ও শিক্ষকরা চা শ্রমিকদের উপর হামলা করে বলে অভিযোগ করেন চা-শ্রমিক নেতারা।
চা শ্রমিক নেতা স্বরজিত পাশী ও দিলিপ সাঁওতাল জানান মৌলভীবাজার থেকে পিকনিক করতে পাচটি বড়ো যাত্রীবাহী বাস নিয়ে একটি মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের নিয়ে শিক্ষকরা কোন অনুমতি না নিয়েই বাগানে প্রবেশ করলে শ্রমিকরা বাধা দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তারা চা শ্রমিকদের উপর হামলা করে। এসময় চা শ্রমিকরা পাগলা ঘন্টা বাজিয়ে সংঘবদ্ধ হয়ে পাল্টা হামলা চালালে উভয় পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।
তেলিয়াপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মো: গোলাম মোস্তফা জানান, মৌলভীবাজার থেকে পিকনিক করতে আসা প্রায় ৩০০/৩৫০ মাদ্রাসা ছাত্র ও শিক্ষক অনুমতি না নিয়েই চা বাগান এলাকায় প্রবেশ করলে চা শ্রমিকরা বাধা দেয়। এক পর্যায়ে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জরিয়ে পড়ে।

পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে কয়েকজন মাদ্রাসা শিক্ষক ও চা শ্রমিক সামান্য আহত হয়েছে। গুরুতর আহত একজন চা শ্রমিককে মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

অন্য আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
তবে মাদ্রাসা ছাত্রদের কোন সমস্যা হয়নি।

পরিস্থিতি বর্তমানে নিয়ন্ত্রণে আছে। এ ঘটনায় এখনো কোনো মামলা হয়নি।

শেয়ার করুন
  •  
  • 79
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





Sylheter#Barta@777

©এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব sylheterbarta24.com কর্তৃক সংরক্ষিত