মঙ্গলবার, ১৫ Jun ২০২১, ০৬:৩৭ অপরাহ্ন১লা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

৪ঠা জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

নোটিশঃ
★সিলেটের বার্তায় প্রতিনিধি/সংবাদদাতা নিয়োগ চলছে। তাই যোগাযোগ করুন নিম্নের মেইল অথবা নাম্বারে।
বিয়ানীবাজারে আরও ৩ জনের শরীরে করোনা, লকডাউন বাড়ি

বিয়ানীবাজারে আরও ৩ জনের শরীরে করোনা, লকডাউন বাড়ি

সিলেটের বার্তা ডেস্ক:: সিলেটের বিয়ানীবাজারে আরও ৩ জনের শরীরে ধরা পড়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। 

মঙ্গলবার (৫ মে) বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. আবু ইসহাক আজাদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ডা. আবু ইসহাক আজাদ জানান, তিন করোনা পজেটিভ রোগীর মধ্যে একজন নারী ও দুজন পুরুষ রয়েছেন। প্রথমজন হচ্ছেন বিয়ানীবাজার উপজেলার প্রথম করোনা রোগী জুয়েলার্সের কারিগর আকবর হোসেনের সংস্পর্শে আসাদের একজন। তিনি পৌর এলাকার নয়াগ্রাম আকবর হোসেনের সাবলেট বাসার একজন নারী। ইতোমধ্যে এ বাড়িটি লকডাউন রয়েছে। দ্বিতীয়জন ভৈরব ফেরত বিয়ানীবাজার পৌর এলাকার কসবার গ্রামের নাসির আহমদ। তিনি পেশায় একজন নির্মাণ শ্রমিক। তৃতীয়জন ঢাকা ফেরত, তিনি উপজেলার মোল্লাপুর ইউনিয়নের মোল্লাপুর বাবনটিলা এলাকার বাসিন্দা সাইদুল ইসলাম। আক্রান্ত তিনজনই সুস্থ রয়েছেন বলেও জানান তিনি।

তিনি জানান, আক্রান্তদের মধ্য একজনের বাড়ি আগে থেকেই লোকডাউনে আছে। উপর দুইজনের বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে।

জানা গেছে, বিয়ানীবাজারে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এখন পর্যন্ত ৮৩ জনের নমুনা সংগ্রহ করে ল্যাবে প্রেরণ করেছে। এর মধ্যে নমুনার মধ্যে ৪৬জনের নমুনা নেগেটিভ ও ৫জনের পজেটিভ রিপোর্ট শনাক্ত হয়েছে। নমুনা পরীক্ষায় অপেক্ষায় রয়েছেন উপজেলার আরো ৩২ জন।

এদিকে, এ নিয়ে বিয়ানীবাজার উপজেলায় মোট করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫জন। গত ২৪ এপ্রিল বিয়ানীবাজারে প্রথম করোনা ভাইরাস আক্রান্ত একজন রোগী শনাক্ত হন। আক্রান্ত ব্যক্তি জুয়েলার্সের কারিগর আকবর হোসেন টাঙ্গাইল থেকে গাজীপুর হয়ে বিয়ানীবাজারে আসেন। তার সংস্পর্শে এসে দ্বিতীয় ব্যক্তি হিসেবে করোনায় পজেটিভ শনাক্ত হন উপজেলার দুবাগ ইউনিয়নের মেওয়া এলাকার আলম হোসেন। ৩০ এপ্রিল তার শরীরে করোনা ধরা পড়ে।

শেয়ার করুন
  •  
  • 240
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





Sylheter#Barta@777

©এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব sylheterbarta24.com কর্তৃক সংরক্ষিত