মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ০৫:১৭ অপরাহ্ন৩০শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

৩০শে শাবান, ১৪৪২ হিজরি

নোটিশঃ
★সিলেটের বার্তায় প্রতিনিধি/সংবাদদাতা নিয়োগ চলছে। তাই যোগাযোগ করুন নিম্নের মেইল অথবা নাম্বারে।
সরঞ্জাম পেয়েছে খাদিমের হাসপাতাল, করোনার চিকিৎসায় প্রস্তত

সরঞ্জাম পেয়েছে খাদিমের হাসপাতাল, করোনার চিকিৎসায় প্রস্তত

নিজস্ব প্রতিবেদক:: সব ধরণের সরঞ্জাম পেয়েছে সিলেট শহরতলীর শাহপরাণ মাজার গেইট সংলগ্ন  ৩১ শয্যা বিশিষ্ট খাদিমপাড়া হাসপাতাল।

কোভিড-১৯ চিকিৎসার জন্য খাদিমপাড়া ৩১ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য বিভাগ, সিলেট-এর সহকারী পরিচালক ডা: আনিসুর রহমান। তিনি জানান, ১০০ শয্যাবিশিষ্ট শহীদ ডা: শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে বর্তমানে প্রতিদিন গড়ে ৭০-৭৫ জন করোনায় আক্রান্ত কিংবা উপসর্গ নিয়ে রোগী ভর্তি থাকেন। এ হাসপাতাল রোগী ভর্তির কোটা পূরণ হয়ে গেলে খাদিম হাসপাতালে করোনায় আক্রান্ত রোগী ভর্তি করা হবে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, খাদিম হাসপাতালে এরই মধ্যে আইসোলেশন সেন্টার চালু হয়েছে। এছাড়া, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শিগগিরই করোনা চিকিৎসা শুরু হবে বলে জানান তিনি।

শহীদ শামসুদ্দিন হাসপাতালের আইসিইউ ইনচার্জ ডা: হোসেন আহমদ জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার শামসুদ্দিন হাসপাতালে ১৩ জন করোনা আক্রান্ত রোগী আইসিইউতে ছিলেন। হাসপাতালে ওইদিন ৮০ জনের কাছাকাছি রোগী ভর্তি ছিলেন বলে জানান তিনি।

খাদিমপাড়া ৩১ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে গত বুধবার প্রায় ১০ লক্ষ টাকার সরঞ্জাম প্রদান করেছে সিলেট কিডনি ফাউন্ডেশন। কিডনি ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক ডাঃ কাজী মুশফিক আহমদের নেতৃত্বে ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তারা দুটি পিকআপে করে এসব মালামাল নিয়ে হাসপাতালে যান।

সিলেট শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে করোনা রোগীর চাপ বেড়ে যাওয়ায় সিলেটে খাদিমপাড়া ৩১ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল ও দক্ষিণ সুরমা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা চিকিৎসার জন্য সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা মাল্টিসেক্টরাল কমিটি। আর এ দুটি হাসপাতালের অক্সিজেন সিলিন্ডার সাপোর্টসহ সবধরনের সহযোগিতা প্রদান করছে সিলেট কিডনী ফাউন্ডেশন। এর অংশ হিসাবে গত বুধবার সরঞ্জামের একটি চালান খাদিম হাসপাতালে প্রদান করা হয় বলে জানান, সিলেট কিডনি ফাউন্ডেশনের কোষাধ্যক্ষ জুবায়ের আহমদ চৌধুরী। খাদিমপাড়া ৩১ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ মোহাম্মদ জালাল উদ্দীন এসব মালামাল গ্রহণ করেন।

জুবায়ের আহমদ চৌধুরী জানান, তাদের পক্ষ থেকে খাদিম হাসপাতালে অক্সিজেন কনসেনট্রেটরম ফ্রিজ, ৫টি মোবাইল ফোন, টিস্যু পেপার, ঝুড়িসহ যাবতীয় সরঞ্জামাদি প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া, হাসপাতালে ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে ওয়াইফাই সংযোগ প্রদান করা হয়েছে। এ হাসপাতাল চালুর পর দক্ষিণ সুরমা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দিকে নজর দেয়া হবে বলে জানান তিনি।

স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, খাদিম হাসপাতাল ও দক্ষিণ সুরমা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বর্তমানে করোনার স্যাম্পল সংগ্রহ করা হচ্ছে।

শেয়ার করুন
  •  
  • 158
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





Sylheter#Barta@777

©এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব sylheterbarta24.com কর্তৃক সংরক্ষিত