শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ০৬:১৮ অপরাহ্ন৪ঠা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

৪ঠা রমজান, ১৪৪২ হিজরি

নোটিশঃ
★সিলেটের বার্তায় প্রতিনিধি/সংবাদদাতা নিয়োগ চলছে। তাই যোগাযোগ করুন নিম্নের মেইল অথবা নাম্বারে।
সিলেটে এখন ‘রক্ত’ সংগ্রহ করবে ‘বাস’

সিলেটে এখন ‘রক্ত’ সংগ্রহ করবে ‘বাস’

নিজস্ব প্রতিবেদক:: রক্ত দিবেন ভাই, রক্ত! হ্যাঁ রক্ত দিবো তবে চৌহাট্রায় যাওয়ার মতো হাতে তো সময় নেই। কিংবা প্রয়োজন দিনে। রক্তদাতা বলছেন যাবেন তিনি রাতে। হতে পারে আপনি/আপনারা পাড়া-মহল্লার কিছু তরুণ, কলেজ-ভার্সিটি পড়ুয়া একঝাঁক যুবক। করবেন সে¦চ্ছায় রক্তদান।

রক্তদান ঝামেলা মুক্ত করতে, সময় বাঁচাতে আপনার কাছেই যদি চলে আসে ‘ব্লাডব্যাংক’। তবে ব্যাপারটা কেমন দাঁড়ায়। তথ্যপ্রযুক্তির যুগ। ব্লাড আসলো আপনার কাছে। সেখানে শীতাতপ নিয়ন্ত্রীতভাবে গায়ে ঠান্ডা বাতাস লাগছে। আছে সব সরঞ্জাম। একসাথে দিতে পারবেন চারজনে ব্লাড।

 

‘মোবাইল রক্ত সংগ্রহ বাস’

হ্যাঁ এমনই সব সুবিধা নিয়ে সিলেটে যাত্রা শুরু করেছে বাংলাদেশ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি সিলেট ইউনিটের একটি অত্যাধুনিক ‘মোবাইল রক্ত সংগ্রহ বাস’।

স্বাস্থ্যসেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে বর্তমান সরকার নানামুখি পদক্ষেপ গ্রহণ করেই চলেছে। যখন থেকে হাতের মুঠোয় স্মার্টফোন সাথে তথ্যপ্রযুক্তি এসেছে তখন থেকেই স্বাস্থ্যখাতে ছোঁয়া লেগেছে নান্দনিকতার। ঘরে বসে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নতুন কিছু নয়। সাথে যুক্ত হয়ে অত্যাধুনিক সকল প্রযুক্তি। সরকারের সেই ধারাবাহিকতায় প্রত্যন্ত অঞ্চলও এগিয়ে চলেছে দুর্বার গতিতে।

রক্ত মানবদেহের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। রক্তই মানুষকে বাঁচিয়ে রাখে। রক্তই দিতে একটি নতুন প্রাণ। বলা হয়ে থাকে ‘রক্তদান’ পৃথিবীর শ্রেষ্ট দান’।

আর সেই ‘রক্ত’ তথা স্বাস্থ্যসেবার বিভিন্ন দিক নিয়ে গুরুত্ব সহকারে কাজ করছে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি। আন্তর্জাতিক এই সেবা সংস্থাটি বাংলাদেশ সরকারের সহায়তা, পৃষ্টপোষকতা আর দিকনির্দেশনায় দেশের মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছে।

‘মোবাইল রক্ত সংগ্রহ বাস’

‘ব্লাড ডুনেশন’ ‘ব্লাড কালেকশন’ তথা রক্ত সংগ্রহ করা। রক্তের প্রয়োজনে থাকা চিতল পাখির মতো এদিক-ওদিক ছুটে বেরানো মানুষকে রক্তের ব্যবস্থা কওে দেয়াই রেড ক্রিসেন্ট’র অন্যতম কাজ।

সিলেট রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সূত্রে জানা যায়, ‘মোবাইল বাস’ নাম দেওয়া হয়েছে। মোবাইলে হ্যালো বললেই রক্ত সংগ্রহ বাসটি চলে আসবে রক্তদাতার কাছে। তাছাড়া রক্তদানে মানুষকে উৎসাহ সৃষ্টির লক্ষেই এই বিকল্প আর ব্যতিক্রমী কার্যক্রম।

সূত্র জানায়, রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি সিলেট ইউনিটের চেয়ারম্যান এডভোকেট লুৎফুর রহমান ও সেক্রেটারি মো. আব্দুর রহমান জামিলের ঐকান্তিক প্রচেষ্ঠায় সিলেটের মানুষের স্বাস্থসেবায় অভূতপূর্ব ভূমিকা পালন করে চলেছে রেড ক্রিসেন্ট সিলেট ইউনিট।

মোবাইল রক্ত সংগ্রহ বাসটিতে একসাথে ৪জন রক্তদাতা নির্বিঘ্নে রক্তদান করতে পারবেন। শীতাতপ নিয়ন্ত্রীত বাসটিতে রয়েছে ফ্রিজাপ করে রাখার সু-ব্যবস্থা। তাছাড়া ‘রক্ত সংগ্রহে’র যাবতীয় সরঞ্জামও রয়েছে বাসটিতে। এমন তথ্য নিশ্চিত করে রেড ক্রিসেন্ট সিলেট ইউনিটের মেডিকেল অফিসার ডা. আবু সালেহ খাঁন বলেন, প্রাথমিক পর্যায়ে ঢাকা, চট্রগ্রাম ও সিলেটে এই অত্যাধুনিক বাস দেওয়া হয়েছে। এর মূল লক্ষ্য হচ্ছে, দেশে প্রতিবছর রক্তের চাহিদা প্রায় ২ লাখ ব্যাগ। কাঙ্খিত এই লক্ষ্যমাত্রা পূরণেই রেড ক্রিসেন্ট কেন্দ্রীয় কার্যালয় এই বিকল্প ও যুগোপযোগী কার্যক্রম হাতে নিয়েছে।

একজন রক্তদাতা বা সংগঠন কীভাবে এই বাসটির সেবা পেতে পারেন এমন প্রশ্নের উত্তরে ডা. আবু সালেহ খাঁন বলেন, যে কেউ সিলেট রেড ক্রিসেন্ট এর নির্ধারিত ফোন নাম্বার ০৮২১-৭১৬৫৬৮ অথবা ই-মেইলে sylhet@bdrcs.org আমাদের তথ্য দিলেই তাৎক্ষণিক তাদের রক্তদানের বিষয়টি গ্রহণ করে সময় ও স্থান নির্ধারণ করেই বাসটি চলে যাবে।

সিলেটে প্রথম ‘মোবাইল রক্ত সংগ্রহ বাস’র কার্যক্রম উদ্বোধন

রবিবার যাত্রা শুরু করা এই বাসটি কীভাবে পরিচালনা করা হবে জানতে চাইলে রেড ক্রিসেন্ট সিলেট ইউনিটের সেক্রেটারি মো. আবদুর রহমান জামিল বলেন, আমরা রুটিন অনুযায়ী ছক করে সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়, মদনমোহন কলেজ, এমসি কলেজ, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্ত্বর, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়সহ নগরীর গুরুপূর্ণ কিছু পয়েন্টে শাহী ঈদগাহ, স্থান নির্ধারণ স্বাপেক্ষে ওই বাসটি রাখার ব্যবস্থা করা হবে।

তবে এই বিষয়টি শিগগিরই সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের সাথে মতামত ও পরামর্শের ভিত্তিতে চূড়ান্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন আব্দুর রহমান জামিল।
তিনি বলেন, অনেক সুস্থ মানুষ আছেন যারা নিয়মিত রক্ত দিতে পারতেন, তবে মানসিকভাবে সিদ্ধান্ত নিতে পারেন না বলে রক্তদানে আগ্রহী হন না। যখন রক্তসংগ্রহের ওই বাসটিতে রক্তদানে অন্যকে দেখলে উৎসাহ জন্মাবে।

রোববার দুপুরে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি সিলেট ইউনিট পরিচালিত মুজিব জাহান রেডক্রিসেন্ট রক্ত কেন্দ্রের সম্মুখে এ উদ্বোধন করা হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে উদ্বোধন করেন- রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি সিলেট ইউনিটের চেয়ারম্যান ও সিলেট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট লুৎফুর রহমান।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- রেডক্রিসেন্ট সিলেট ইউনিটের ভাইস চেয়ারম্যান মনসুজ্জামান চৌধুরী বাবুল, কার্যকরী পরিষদ সদস্য সাইফুর রহমান খোকন, সোয়েব আহমদ, মজির উদ্দিন, রেডক্রিসেন্ট মাতৃমঙ্গল হাসপাতালের পরিচালক ডা. সূধাময় মজুমদার, মুজিব জাহান রেডক্রিসেন্ট রক্তকেন্দ্রের ইনচার্জ ডা. আবু সালেহ খান, সহকারী পরিচালক প্রশাসন মফিজুল ইসলাম, রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি সিলেট ইউনিটের যুব প্রধান শাহনূর চৌধুরী সাথি, সাবেক যুব প্রধান নাজিম খানসহ যুব রেডক্রিসেন্ট সদস্যবৃন্দ। উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথি রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি সিলেট ইউনিটের চেয়ারম্যান ও সিলেট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট লুৎফুর রহমান বলেন, সুস্থ ও নিরাপদ রক্ত পেতে সমাজের সর্বস্তরের মানুষকে সচেতন হবে। তাহলেই মানুষ পেতে পারে নিরাপদ রক্ত। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি সর্বদাই নিরাপদ রক্তই সরবরাহ করে থাকে।

বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির চলমান রক্ত সংগ্রহ কার্যক্রমকে আরও গতিশীল ও দেশের প্রয়োজনীয় রক্তের চাহিদা মেটাতে বাংলাদেশে ৩টির মধ্যে সিলেটে ১টি ভ্রাম্যমাণ রক্ত সংগ্রহ বাসের কার্যক্রম শুরু হলো। এক্ষেত্রে সিলেট বিভাগের রক্তদাতা, সংগঠন বিভিন্ন প্রতিষ্টান প্রধানের সহযোগীতা কামনা করেন। উলে¬খ্য, দেশের রক্তের মোট চাহিদার ১১% নিরাপদ রক্ত বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির বিভিন্ন ব¬াড ব্যাংক (রক্ত কেন্দ্র) থেকে সরবারাহ করা হয়।

শেয়ার করুন
  •  
  • 1.3K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





Sylheter#Barta@777

©এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব sylheterbarta24.com কর্তৃক সংরক্ষিত