শুক্রবার, ১৪ অগাস্ট ২০২০, ১১:০৯ পূর্বাহ্ন৩০শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

২৩শে জিলহজ্জ, ১৪৪১ হিজরী

নোটিশঃ
★করোনাভাইরাস থেকে হেফাজত থাকতে পড়ুন-'লা-ইলাহা ইল্লা আনতা সুবহানাকা, ইন্নি কুনতু মিনায যোয়ালিমীন'।। ★সিলেটের বার্তায় প্রতিনিধি/সংবাদদাতা নিয়োগ চলছে। তাই যোগাযোগ করুন নিম্নের মেইল অথবা নাম্বারে।
স্ত্রী-সন্তান হত্যার দায়ে লন্ডনে সিলেটি যুবকের যাবজ্জীবন

স্ত্রী-সন্তান হত্যার দায়ে লন্ডনে সিলেটি যুবকের যাবজ্জীবন

প্রবাস বার্তা:: নিজের বৃটিশ ভিসা নবায়নে সাহায্য করতে রাজি হননি স্ত্রী। এ নিয়ে ঝগড়ার পর স্ত্রী সহ নিজের পুরো পরিবারকেই হত্যা করেছেন বৃটেনে কর্মরত এক বাংলাদেশি কারি শেফ। তার এখন যাবজ্জীবন সাজা হতে পারে। এ খবর দিয়েছে বৃটিশ দৈনিক ডেইলি মেইল। মোহাম্মদ আবদুল শুকুর নামের ওই যুবকের বাড়ি সিলেটে।

খবরে বলা হয়, আবদুল শুকুর নিজের অভিবাসন মর্যাদা নিয়ে স্ত্রী জুলি বেগমের সঙ্গে ঝগড়া করেন। এরপর তিনি স্ত্রী জুলি বেগম সহ দুই কন্যা অনিকা ও তানহাকে হত্যা করেন। ওই দুই কন্যার বয়স ছিল যথাক্রমে পাঁচ ও ছয়। জুলি বেগম ঝগড়া করছিলেন এই বলে যে সংসারে তেমন টাকা দেন না শুকুর।
ঝগড়ার পর এক রাতে এক সহকর্মীর কাছ থেকে ১০০ পাউন্ড ধার নিয়ে পূর্ব লন্ডনের ইস্ট হ্যামে অবস্থিত জুলি বেগমের বাসায় যান শুকুর। এরপর তিনি স্ত্রীর সঙ্গে শেষবারের মতো সহবাসে লিপ্ত হন। তারপর তিনি জুলি বেগমকে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন। তিনি কন্যা অনিকাকে সাদা মোজা দিয়ে ফাঁস দিয়ে ও তানহাকে মাথার খুলিতে আঘাত করে হত্যা করেন। খবরে বলা হয়, আগেও জুলি বেগমকে পিটিয়েছিলেন শুকুর।

২০০১ সালে যখন তার স্ত্রী গর্ভবতী ছিলেন, তখনও তাকে একবার আঘাত করেছিলেন এই বাংলাদেশি শেফ। এই হত্যার ঘটনা ঘটে ২০০৭ সালের জানুয়ারিতে। তখন তিনি সারে’র একটি রেস্তরাঁয় দৈনিক ১৩০ পাউন্ডের বিনিময়ে কাজ করতেন। হত্যার পর নিজের পিতা মারা যাওয়ার কথা বলে ৫ই জানুয়ারি বাংলাদেশে চলে আসেন তিনি।

সিলেটের এই বাসিন্দা এক মাস পর বাংলাদেশে জুলি বেগমের বোনের বাড়িতে হাজির হন। সেখানে তিনি তাকে হুমকি দেন এই বলে যে, ‘আমি তোমার বোনকে হত্যা করেছি এ কথা পুলিশকে বলবে না। বললে তোমাকে আর তোমার সন্তানদেরও হত্যা করবো।’ তবে দীর্ঘ আইনি লড়াইয়ের পর এই বছরের এপ্রিলে বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাজ্যে ফেরত পাঠানো হয় শুকুরকে।

তিনি ৩টি হত্যার ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন। জুলি বেগমের পরিবার এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘আবদুল শুকুর আমাদের পুরো পরিবারকে ধ্বংস করেছে। সে এক মিষ্টি মা ও বোন, জুলিকে কেড়ে নিয়েছে। সে কেড়ে নিয়েছে দুই মিষ্টি মেয়ে তানহা ও অনিকার ভবিষ্যৎ।’ লন্ডনের বিচারক রিচার্ড মার্কস কিউসি বলেছেন, শুকুর যাবজ্জীবন সাজা পেতে পারে।

 

Last Updated on

শেয়ার করুন
  •  
  • 170
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





Sylheter#Barta@777

সিলেটের বার্তা পরিবারঃ

এম. এ কাদির-বালাগঞ্জ প্রতিনিধি

লিটন পাঠান-মাধবপুর প্রতিনিধি

 

©সিলেটের বার্তা ২৪ কর্তৃক সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত।