শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১২:০৭ পূর্বাহ্ন১৪ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

১৪ই রজব, ১৪৪২ হিজরি

নোটিশঃ
★সিলেটের বার্তায় প্রতিনিধি/সংবাদদাতা নিয়োগ চলছে। তাই যোগাযোগ করুন নিম্নের মেইল অথবা নাম্বারে।
হবিগঞ্জে মা-মেয়েকে, সিলেটে শিশুকে ধর্ষণ, চার ধর্ষক গ্রেফতার

হবিগঞ্জে মা-মেয়েকে, সিলেটে শিশুকে ধর্ষণ, চার ধর্ষক গ্রেফতার

সিলেটের বার্তা প্রতিবেদক:: এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গৃহবধূ গণধর্ষণের ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতে ঘটেছে আরও ২/১টি ধর্ষণের ঘটনা।
সর্বশেষ গোলাপগঞ্জ থেকে নিজু নামের এক ছাত্রলীগ কর্মীকে ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার করা হয়।

এদিকে একইদিনে (রবিবার, ৪ অক্টোবর) হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে মা-মেয়কে দলবেঁধে ধর্ষণের খবর পাওয়া গেছে। অপরিদেক সিলেট সদর উপজেলার সর্দারগাঁও এলাকায় ৫ম শ্রেণির এক শিশুকে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।

উভয় ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতার করা হয়েছে চার জনকে।

আমাদের হবিগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, রোববার (৪ অক্টোবর) বিকেলে এ দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়। তারা হলেন- উপজেলার গরম ছড়ি এলাকার শফিক মিয়ার ছেলে শাকীল আহমেদ (২২) ও একই এলাকার রেজাক মিয়ার ছেলে হারুন মিয়া (২৫)।

চুনারুঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) চম্পক ধাম গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নির্যাতনের শিকার নারীর বয়স ৪৫ এবং তার মেয়ের বয়স ২৫ বছর। তারা গরম ছড়ি এলাকার বাসিন্দা। শনিবার দিবাগত রাতে মেয়ে বাদি হয়ে চুনারুঘাট থানায় মামলা দায়ের করেন। এতে তিনজনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত একাধিক আসামী করা হয়েছে।

মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে, নির্যাতনের শিকার নারীর স্বামী ও মেয়ের বাবা মৃত। শুক্রবার (৩ অক্টোবর) রাত আটটার দিকে পূর্ব পরিচিত শাকীল ও হারুনসহ কয়েকজন যুবক তাদের বাড়িতে গিয়ে ডাকাডাকি করেন। তখন ঘরে প্রবেশ করে দু’জন মিলে মেয়ে ও আরেক যুবক তার মাকে ধর্ষণ করেন।

চুনারুঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) চম্পক ধাম জানান, ধর্ষণের অভিযোগ প্রাথমিকভাবে সত্য মনে হচ্ছে। রোববার দুপুরে মা ও মেয়েকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরো জানান, ঘটনায় জড়িত দুই যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকী আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। খবর পেয়ে জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ উল্ল্যা চুনারুঘাট থানায় গিয়ে এ বিষয়ে নানা নির্দেশনা দিয়েছেন।

স্টাফ রিপোর্ট: সিলেট সদর উপজেলার সর্দারগাঁও এলাকায় ৫ শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় দু’জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রোববার (৪ অক্টোবর) ভোর ৬টায় সুনামগঞ্জের আক্তাপাড়া থেকে জসিমকে আর সকাল সাড়ে ১০টায় সিলেট নগরীর কালাপাহাড় এলাকা থেকে এখলাছকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলো- সদর উপজেলার জালালাবাদ থানার রায়েরগাঁও এলাকার নাসির উদ্দিনের ছেলে জসিম উদ্দিন ও সর্দারগাঁও এলাকার তজম্মুল আলীর ছেলে এখলাছ আলী।

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) জ্যোতির্ময় সরকার পিপিএম বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

জানা যায়, ধর্ষণের শিকার ওই স্কুল ছাত্রীর বাবা ১৩ সেপ্টেম্বর রাতে জালালাবাদ থানায় দু’জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

স্কুল ছাত্রীর বাবা বলেন, ঘটনার রাত ১০টার দিকে আমার মেয়ে বাতরুমে যায়। ওই সময়ে বিদ্যুৎ ছিলো। একটু পরেই আবার বিদ্যুৎ চলে যায়। এই ফাঁকে সর্দারগাঁও এর এখলাছ আমার মেয়েক মুখে চেপে ধরে ও রায়েরগাঁওয়ের জসিম আমার মেয়েকে তুলে নিয়ে যায় বাছাই নদীর চরে। ওইখানে তারা দু’জন মিলে ধর্ষণ করে।

এরপর তারা আমার মেয়েকে নৌকা করে অন্যত্র নিয়ে যাওয়ার জন্য রাতে নদীর পাড়ে যায়। সেখানে মেয়েটির মামা বিষয়টি দেখতে পেয়ে এগিয়ে আসেন। এসে দেখেন তাদের কাছে তার স্কুল পড়ুয়া ভাগ্নি। এরপর তাদের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে স্কুল ছাত্রীকে ফেলে ঘটনার হোতার দ্রুত পালিয়ে যায়।

শেয়ার করুন
  •  
  • 102
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





Sylheter#Barta@777

©এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব sylheterbarta24.com কর্তৃক সংরক্ষিত