রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৯:৫২ পূর্বাহ্ন১৫ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

১৫ই রজব, ১৪৪২ হিজরি

নোটিশঃ
★সিলেটের বার্তায় প্রতিনিধি/সংবাদদাতা নিয়োগ চলছে। তাই যোগাযোগ করুন নিম্নের মেইল অথবা নাম্বারে।

১৫ দিনের লকডাউনে ইতালি

ইতালির প্রধানমন্ত্রী জুসেপ্পে কন্তে। ফাইল ফটো

আন্তর্জাতিক বার্তা:: মহামারী করোনা ভাইরাসের প্রাদূর্ভাব বৃদ্ধি পাওয়ায় ফের লকডাউনের ঘোষণা করা হয়েছে ইতালিতে।

আজ বুধবার মধ্যরাত অর্থ্যাৎ বৃহস্পতিবার (০৫ নভেম্বর) কার্যকর হবে এই লকডাউন।

এ দফায় পুরো দেশে লকডাউন নয় বরং দেশটির ঝুঁকিপূর্ণ পাঁচটি বিভাগীয় অঞ্চলে আগামী পনেরো দিনের জন্য এ লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। দেশটির গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যিক শহর মিলান ও তোরিনোসহ মোট পাঁচটি অঞ্চল নতুন এ লকডাউনের আওতায় রয়েছে। বুধবার মধ্যরাত অর্থাৎ বৃহস্পতিবার থেকেই শুরু হচ্ছে এ লকডাউন।

স্থানীয় সময় বুধবার রাতে দেশটির প্রধানমন্ত্রী জুসেপ্পে কন্তে নতুন এক অধ্যাদেশে স্বাক্ষর করে এসব তথ্য তুলে ধরেন।

নতুন এ অধ্যাদেশে বলা হয়েছে, অতীতের মতো আবারো সমগ্র ইতালিকে তিনভাগে বিভক্ত করা হয়েছে। যেসব অঞ্চলে আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমান্বয়ে বেড়ে চলছে সেসব অঞ্চলকে রেড জোনের তালিকায় আনা হয়েছে। আর যেসব অঞ্চলে আক্রান্তের সংখ্যা একটু কম সেসব অঞ্চলকে ইয়েলো বা হলুদ জোনের তালিকায় আনা হয়েছে। আর যে সব অঞ্চলে আক্রান্তের সংখ্যা খুবই কম সেসব অঞ্চলকে গ্রিন বা সবুজ জোন বলে আখ্যায়িত করা হয়েছে।

তবে বর্তমানে রেড জোনের তালিকাভুক্ত মিলানের বিভাগীয় অঞ্চল লম্বার্দিয়া, পিয়েমন্তে, ভালে দি অস্তা, আলতো আদিজে ও কালাব্রিয়া এ পাঁচটি অঞ্চলে মধ্যরাত থেকে জারি করা হয়েছে লকডাউন। এসময় অতি জরুরি প্রয়োজন ছাড়া এসব অঞ্চলের কেউ ঘর থেকে বের হতে পারবে না।

এছাড়া এসময় রেড জোনের তালিকাভুক্ত অঞ্চল থেকে কেউ হলুদ বা সবুজ জোনে যেতে ও আসতে পারবে না। তবে শুধু চাকরি, শিক্ষা ও চিকিৎসার প্রয়োজনে প্রমাণসহ অন্য অঞ্চলে যাতায়াত করতে পারবে। তবে এসব অঞ্চলে মুদিদোকান ও ফার্মেসিসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দোকান খোলা থাকবে। তবে বন্ধ থাকবে সকল ধরনের সুপারমার্কেট।

এছাড়া বাচ্চাদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা থাকবে। তবে রেস্টুরেন্ট চালু থাকবে কিন্তু কেউ যেতে পারবে না। শুধু অনলাইনের মাধ্যমে খাবার অর্ডার করে বাসায় আনার অনুমতি রয়েছে।

তবে এসব বিধিনিষেধ কিছুটা শিথিল রয়েছে হলুদ জোনের জন্য। দেশটির গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চল কাম্পানিয়া, লিগুরিয়া, ভেনেতো ও পুলিয়া রয়েছে এই হলুদজোনের তালিকায়। এসব অঞ্চলে রাত দশ টার পর থেকে কেউ জরুরি প্রয়োজনে ঘর থেকে বের হতে পারবে না। তবে রাত ১০টা পর্যন্ত রেস্তোরাঁ ও বার খোলা থাকলেও সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ভেতরে বসে খাবার অনুমতি রয়েছে আর এরপর থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত শুধু খাবার অর্ডার করে বাসায় নিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে সপ্তাহের শেষের দুইদিন অর্থাৎ শনি ও রবিবার বাদে সব দিন সুপারমার্কেটসহ সকল ধরনের দোকান খোলা থাকবে। উৎসবের দিন সবকিছু বন্ধ রাখার নির্দেশ রয়েছে।

আর সবুজ জোনের অঞ্চলগুলাতেও হলুদ জোনের মতো বিধিনিষেধ রয়েছে। তবে কিছু ক্ষেত্রে একটু শিথিলতা রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর নতুন এ অধ্যাদেশ অনুযায়ী রেড জোনের লকডাউন ১৫ দিনের জন্য হলেও অন্যান্য জোনের বিধিনিষেধ ও পূর্বের অপরিবর্তিত বিধিনিষেধ আগামী ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত কার্যকর থাকবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

এমতাবস্থায় বাংলাদেশে আটকে পড়া সকল নতুন পারিবারিক ভিসাধারী, ভ্রমণ ও ব্যবসায়িক ভিসাধারিদের আগামী ৩ ডিসেম্বরের আগে ইতালিতে ফেরার সুযোগ নেই। যদি না বর্তমান সরকার এসব ক্যাটাগরির ভিসাধারীদের জন্য শিথিলতা না আনে। তবে বর্তমানে যেকোন বৈধ ডকুমেন্টসধারী ইতালি থেকে তার নিজ দেশে যেতে ও আসতে পারবেন।

শেয়ার করুন
  •  
  • 95
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





Sylheter#Barta@777

©এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব sylheterbarta24.com কর্তৃক সংরক্ষিত