বৃহস্পতিবার, ০৫ অগাস্ট ২০২১, ১০:১৪ পূর্বাহ্ন২১শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

২৫শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

নোটিশ
★সিলেটের বার্তায় প্রতিনিধি/সংবাদদাতা নিয়োগ চলছে। তাই যোগাযোগ করুন নিম্নের মেইল অথবা নাম্বারে।
হল খুলার দাবিতে উত্তাল শাবি

হল খুলার দাবিতে উত্তাল শাবি

পরীক্ষার আগে আবাসিক হল খুলে দেয়ার দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে উত্তাল শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস।

আজ শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে উপাচার্যের বাসভবনের প্রধান ফটকের সামনে অবস্থান কর্মসূচী পালন করেন তারা।

অবস্থানকালে ‘দাবি মোদের একটাই; সব হল খোলা চাই’, ‘হল বন্ধ রেখে পরীক্ষা কেন প্রশাসন জবাব চাই’, ‘শিক্ষার্থীর নিরাপত্তা কই? জবাব চাই’, ‘ছাত্রী মেসে হামলা কেন? প্রশাসন জবাব চাই‘, ‘ছাত্রী মেসে চুরি কেনো? ইত্যাদি লেখা সম্বলিত প্লাকার্ড ও ফেস্টুন বহন করে শিক্ষার্থীরা।

আন্দোলনের বিষয়ে জানতে চাইলে শিক্ষার্থীরা বলেন, আবাসিক হল না খুলে পরীক্ষা নেওয়া সম্পূর্ণ অযৌক্তিক। নতুন করে ১ম, ২য় ও ৩য় বর্ষের সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষা আগামী মার্চের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে শুরু করতে প্রত্যেক বিভাগে বলা হয়েছে। অথচ কোথায়, কিভাবে থেকে শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা দিবে তার কোন সমাধান দেওয়া হয় নি।

শিক্ষার্থীরা আরও বলেন, ইতোমধ্যে যেসব শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা শুরু হয়েছে তারা অনেক কষ্ট করে বিশ্ববিদ্যালয় পার্শ্ববর্তী এলাকাতে থেকে পরীক্ষা দিচ্ছে। এর মধ্যে যদি আবার আবাসিক হল খোলা ছাড়াই যদি ২য় ধাপে পরবর্তী ব্যাচগুলোর পরীক্ষা শুরু হয় তাহলে তারা কোথায় থেকে পরীক্ষা দেবে?

‘মেয়ে শিক্ষার্থীরা সিলেটের বিভিন্ন আবাসিক এলাকাগুলোতে অনিরাপত্তাহীনতার মধ্যে থেকে পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে ‘ উল্লেখ করে শিক্ষার্থীরা বলেন, মেয়েদের আবাসিক মেসে তালা ভেঙে যুবক প্রবেশ করছে, মেসে মেসে চুরি হচ্ছে। রাস্তা-ঘাটে হয়রানির শিকার হচ্ছে। সব মিলিয়ে এমন পরিস্থিতিতে হল না খুলরে শিক্ষার্থীরা কিভাবে পরীক্ষা দিবে তার সমাধান চেয়েই তাদের এ অবস্থান কর্মসূচি বলে জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা।

প্রতিবেদন লেখার পূর্ব পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা এখনো উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান করছেন। তবে ইতোমধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আবু হেনা পহিল ঘটনাস্থনে উপস্থিত হয়ে উপাচার্যের সাথে এ বিষয়ে আলোচনার কথা জানিয়েছেন। ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সাথে সাক্ষাত করতে গেছেন বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে ছাত্র উপদেশ ও নির্দেশনা পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. রাশেদ তালুকদার বলেন, হল খোলার ব্যাপারে শিক্ষার্থীদের দাবি আমরা গুরুত্বের সাথে নিয়েছি। এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সরকারের উচ্চ মহলের সঙ্গে যোগাযোগ করছে।

উল্লেখ্য, গত ১৭ ফেব্রুয়ারি সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৬৩তম একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় আগামী মার্চ মাসের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে দ্বিতীয় ধাপে ১ম, ২য় ও ৩য় সেমিস্টারের পরীক্ষা শুরু করে এপ্রিল মাসের ২৪ তারিখের মধ্যে সকল পরীক্ষা শেষ করার সিদ্ধান্ত নেয়। যেখানো আবাসিক হল খোলার বিষয়ে কোন সিদ্ধান্ত জানানো হয় নি। এর প্রেক্ষিতে অবস্থান কর্মসূচি ও বিক্ষোভ মিছিল করছে শিক্ষর্থীরা। এছাড়া ১ম ধাপেও আবাসিক হল খোলা ছাড়াই পরীক্ষায় অংশ নেয় অনার্স শেষ বর্ষ ও মাস্টার্স শিক্ষার্থীরা।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





Sylheter#Barta@777

©এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব sylheterbarta24.com কর্তৃক সংরক্ষিত