বৃহস্পতিবার, ০৫ অগাস্ট ২০২১, ১২:৩২ পূর্বাহ্ন২১শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

২৫শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

নোটিশ
★সিলেটের বার্তায় প্রতিনিধি/সংবাদদাতা নিয়োগ চলছে। তাই যোগাযোগ করুন নিম্নের মেইল অথবা নাম্বারে।
এসএমপিতে ৮দিনে ১৫৭৮টি মামলা, ৯৫৪টি যানবাহন আটক

এসএমপিতে ৮দিনে ১৫৭৮টি মামলা, ৯৫৪টি যানবাহন আটক

ট্রাফিক পক্ষ বলেন আর সপ্তাহ। ৭ দিন আর ১৫ দিনজুড়ে থাকে ট্রাফিক বিভাগের বিরাহীন কাজ। নগরের মোড়ে মোড়ে, গুরুত্ব পয়েন্টে ছক এঁকে, বিশেষ চেক পোস্ট বসিয়ে সবধরণের যানবাহনের কাগজপত্র পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়।

এই নীরিক্ষণের সময় যাদের ঘাটতি ধরা পড়ে তাদের বিরুদ্ধে হয় মামলা। আটক করা হয় সেই যানবাহনকে।

ট্রাফিক পক্ষকে সামনে রেখে নগরীর ১৪টি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে চেকপোস্টে বিসয়ে ট্রাফিক বিভাগের ১২টি টিম একযোগে কাজ করছে বলে সূত্র জানায়।

১৬ জুন বুধবার থেক শুরু হওয়া ট্রাফিক পক্ষ-২০২১। ১৬-২৩ জুন মোট আটদিনে সিলেট মেট্রোপলিটন এলাকায় মামলা হয়েছে ১৫৭৮টি, আর ৯৫৪টি যানবাহন আটক করা হয়েছে।

এসএমপির মিডিয়া শাখা কর্তৃক প্রেরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তি মারফত এই তথ্য পাওয়া যায়।

সর্বশেষ ২৩ জুন, বুধবার ট্রাফিক পক্ষের ৮ম দিনে অভিযান চালিয়ে ১৯৪ মামলা ও ১১১টি যানবাহন আটক করা হয়েছে।

অভিযানে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগ নগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ও পয়েন্ট হুমায়ুন রশীদ চত্বর, মধুবন পয়েন্ট, শেখঘাট পয়েন্ট, শিবগঞ্জ পয়েন্ট ও ওভার ব্রীজের নিচে চেকপোস্ট পরিচালনা করে মোট ৯৪টি মামলা ও ৬৮টি গাড়ি আটক করা হয়।

এদিকে, ট্রাফিক বিভাগের কুইক রেসপন্স টিম বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে ৫৩টি মামলা ও ২৫টি যানবাহন আটক করে। এছাড়া বিভিন্ন পয়েন্টে ডিউটিতে নিয়োজিত ট্রাফিক পুলিশ ৪৭টি মামলা ও ১৮টি গাড়ি আটক করে।

অভিযানে সিএনজি অটোরিকশা ৬২টি, মোটরসাইকেল ৮৯টি, প্রাইভেট কার ১৬টি ও অন্যান্য ২২টি মামলা সহ মোট ১৮৯টি মামলা এবং সিএনজি অটোরিকশা ১৭টি, মোটরসাইকেল ৬২টি, প্রাইভেট কার ৬টি, অন্যান্য ২৬টি সহ মোট ১১১টি গাড়ি আটক করা হয়।

এর আগে ৭ম দিনে ২৩৫টি মামলা ও ১১৩টি যানবাহন আটক করা হয়।
৬ষ্ট দিনে ২১৪টি মামলা ও ১২৫টি যান, ৫ম দিনে ২১১টি মামলা ও ১২৩ যানবাহন, ৪র্থ দিনে ১৬৪টি মামলা ও ১১৩টি যান আটক করে ট্রাফিক বিভাগ।

৩য় দিনে ১০২টি মামলা ও ৯৪টি যানবাহন, ২য় দিনে ২০৬টি মামলা ও ১১৮টি যান এবং ১ম দিনে ২৫২টি মামলা ও ১৫৭টি যানবাহন আটক করে এসএমপির ট্রাফিক পুলিশ।

এসএমপির ট্রাফিক বিভাগের ডিসি ফয়সল মাহমুদ ট্রাফিক বিভাগের টিআই ও সার্জেন্টদের ৫টি বিষয়ে নির্দেশনা প্রদান করেন।

নির্দেশনাগুলো হলো- ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া নগরীতে গাড়ি চলবে না, সিএনজিচালিত অটোরিকশায় চালকসহ মোট চার জন থাকবে, সার্কিট হাউজ থেকে আম্বরখানা পয়েন্ট পর্যন্ত রাস্তায় রং পার্কিংয়ের বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রম চালানো হবে, হেলমেটবিহীন রাইডারদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে এবং ট্রিপল (তিনজন) রাইডারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ব্যাপরে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের ডিসি (ট্রাফিক) ফয়সল মাহমুদ বলেন, এসএমপি’র কমিশনার নিশারুল আরিফ মহোদয়ের সার্বিক নির্দেশনাক্রমে ট্রাফিক পক্ষ উপলক্ষে সড়কে শৃঙ্খলা আনা হবে। দুর্ঘটনা প্রতিরোধের জন্য সারা বছর আমরা সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮ বাস্তবায়নের জন্য আমরা কঠোর পরিশ্রম করি। ট্রাফিক পক্ষ উপলক্ষে আমাদের এ নিয়মিত কার্যক্রমকে আরও গতিশীল ও জোরদার করা হবে।

তিনি বলেন, বিশেষ করে সিএনজিচালিত অটোরিকশার কাগজপত্র পরীক্ষা এবং অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহন, হেলমেটবিহীন ও ট্রিপল রাইডিং এবং সার্কিট হাউজ থেকে আম্বরখানা পর্যন্ত রাস্তায় রং পার্কিংয়ের বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রমের বিষয়টিকে এবারের ট্রাফিকপক্ষে বিশেষ ভাবে ফোকাস করা হবে।

তিনি আরও বলেন, নগরবাসীকে ট্রাফিক আইন মেনে চলার মাধ্যমে সড়কের শৃঙ্খলা রক্ষায় যার যার অবস্থান থেকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনের জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে।

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  





Sylheter#Barta@777

©এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব sylheterbarta24.com কর্তৃক সংরক্ষিত